খ্রীস্টানদের সবচেয়ে বড় প্রার্থনা সভায় পোপ

0
32

খ্রীস্টানদের সবচেয়ে বড় প্রার্থনা সভায় পোপ

ক্যাথলিক খ্রীস্টানদের ধর্মীয় নেতা পোপ ফ্রান্সিস বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বড় আকারের একটি প্রার্থনা সভায় নেতৃত্ব দিয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে, তাতে প্রায় এক লাখ মানুষ যোগ দিয়েছেন। শুক্রবার সকাল দশটার দিকে এই অনুষ্ঠান শুরু হয়। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে দলে দলে আসা খ্রীস্টানরা এই উন্মুক্ত প্রার্থনা সভায় অংশ নেন যা পোপ ফ্রান্সিস পরিচালনা করেছেন। খ্রীস্টান ধর্মাবলম্বীরা তাদের ধর্মীয় নেতাকে নিজের চোখে দেখতে খুব ভোর থেকেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জড়ো হতে শুরু করেন। সেখানে কড়া নিরাপত্তার মধ্যে পোপ ফ্রান্সিসের পৌরহিত্যে এই প্রার্থনা-সভা অনুষ্ঠিত হয়।
প্রায় আড়াই ঘণ্টার এই অনুষ্ঠানে পোপ ফ্রান্সিস বিশ্বের শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে প্রার্থনা করে বলেন, প্রার্থনা করতে করতে কেউ যাতে ক্লান্ত না হয়ে পড়েন। ষোলো জন ডিকনকে যাজক হিসেবে অভিষিক্ত করে ক্যাথলিক খ্রিষ্টানদের প্রধান ধর্মীর গুরু ও ভ্যাটিকানের রাষ্ট্রপ্রধান বলেন, সকল সম্প্রদায়ের মানবিক মর্যাদা নিশ্চিত করার জন্য সবাইকে কাজ করতে হবে।
শুক্রবার সকাল থেকেই প্রায় লক্ষ খ্রিস্ট-ভক্ত অপেক্ষায় ছিল ক্যাথলিকদের সর্বোচ্চ ধর্মীয় গুরু পোপ ফ্রান্সিসের। খালা ছাদের একটি গাড়িতে তিনি এলেন আশীর্বাদ করতে করতে। হাত নেড়ে তার জবাবও দিলেন ভক্তরা। প্রবেশ গীতি এবং বেদী ও ক্রুশের প্রতি ধূপারতির পর কিছুক্ষণ নীরবতায় কাটিয়ে শুরু হয় উপাসনার আনুষ্ঠানিকতা। চলে একের পর এক সমবেত কণ্ঠে প্রার্থনা-সঙ্গীত।
ঢাকায় বিভিন্ন দূতাবাসের কর্মকর্তারাও এই অনুষ্ঠানে যোগ দান করেন। এরপর তিনি কাকরাইলে খ্রীস্টানদের প্রধান গির্জা বিশপ হাউজে বিভিন্ন ধর্মের মানুষের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত এক সম্মেলনে যোগ দেন। সেখানে তিনি মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা কয়েকজন রোহিঙ্গা মুসলিমের সাথেও সাক্ষাৎ করেছেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে পোপ ফ্রান্সিসের একটি বৈঠকও অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকায় ভ্যাটিকানের রাষ্ট্রদূতের বাসভবনে গিয়ে শেখ হাসিনা দেখা করেন পোপ ফ্রান্সিসের সাথে। [সূত্র : চ্যানেল আই, বিবিসি বাংলা]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here