সুখে দুঃখে জনগণের পাশে থাকাই আমার রাজনীতি আলহাজ মোঃ আজমত দেওয়ান সাধারণ সম্পাদক, ভাষাণটেক থানা, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তর

0
277

সুখে দুঃখে জনগণের পাশে থাকাই আমার রাজনীতি
আলহাজ মোঃ আজমত দেওয়ান
সাধারণ সম্পাদক, ভাষাণটেক থানা, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তর

 

মিরপুরের ই সি বি চত্বর থেকে বাঊনিয়া খাল পর্যন্ত সমস্ত অবৈধ দখল ইচ্ছেদ করে এলাকার পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করতে এখনই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ দরকার। সাপ্তাহিক বিবর্তনের সাথে এক সাক্ষাতকারে বললেন এলাকার গর্ব, বিশিষ্ট সমাজকর্মী ও ভাষাণটেক থানা আওয়ামিলীগ এর সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মোঃ আজমত দেওয়ান। তিনি আরও বলেন মিরপুরের ভাষাণটেক , দেওয়ানপাড়া ও মাটি কাটা এলাকার পানি নিষ্কাষণ হয় এই বাঊনিয়া খাল দিয়ে অথচ অবৈধ দখলবাজরা এই খালের অধিকাংশ দখল করে খাল ভরাট করে বিভিন্ন স্থাপণা তৈরি করেছে, যে কারণে সামান্য বৃষ্টি হলেই এই সকল এলাকায় জলাবদ্ধতা দেখা দেয়, ফলে এলাকার লক্ষাধিক মানুষ পানি বন্দি হয়ে নিদারুণ কষ্টে পরে যায়। কিছু সংখ্যক ভূমি দস্যূর কারণে এলাকার মানুষের দুঃখ দুর্দশা মেনে নেওয়া যায় না, এ বিষয়ে ওয়াসা কে আরও তৎপর হতে হবে। এছাড়াও মিরপুর ১৪ নং এ অবস্থিত পানি নিষ্কাষণ এর ক্যানেল গুলিকে পানি নিষ্কাষনের উপযুক্ত করতে হবে, তা না হলে এলাকার জলাবদ্ধতা দূর করা যাবে না এবং এলাকাবাসীর দুর্দশারও লাঘব হবে না। পাশাপাশি বাঊনিয়া খালের সীমানা নির্ধারণ করে বাঊনিয়া খাল অবৈধ দখল মুক্ত করে জরুরি ভিত্তিতে খালের সংস্কার করতে হবে, এ বিষয়ে ওয়াসাকে পদক্ষেপ নিতে হবে। আলহাজ আজমত দেওয়ান আরও বলেন ভাষাণটেক থেকে দেওয়ানপাড়া লোহার ব্রিজ পর্যন্ত সুয়ারেজ লাইন সংস্কার করে পানি নিস্কাষনের ব্যবস্থা করতে হবে, পাশাপাশি রাস্তার কার্পেটিং ঠিক করতে হবে। তিনি আরও বলেন ১৪ নং থেকে ভাষানটেক মোড় পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশ অবৈধভাবে দখল করে দোকান পাট বানিয়ে চাদাবাজি চলছে, ফলে ঐ এলাকায় প্রতিনিয়ত তীব্র যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে, মানুষ হাটতে পারছেন না। অবিলম্বে ঐ রাস্তার দুই পাশ অবৈধ দখলমুক্ত করতে হবে, এ বিষয়ে আমি সংশ্লিষ্ট প্রশাসন এবং প্যানেল মেয়রদের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করছি। এখানে বলা প্রয়োজন আলহাজ আজমত দেওয়ান শুধু একজন প্রতিষ্ঠিত রাজনীতিকই নন, পাশাপাশি তিনি একজন সমাজসেবক। এলাকার বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ তার কাছে আসেন বিভিন্ন সমস্যা ও অভিযোগ নিয়ে। তিনিও অত্যন্ত আন্তরিকতার সাথে আগত লোকজনের কথা শোনেন এবং পরামর্শ দেন। আলহাজ আজমত দেওয়ান আপাদমস্তক বঙ্গবন্ধুর আদর্শে গড়া একজন মানুষ। এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার বিস্বস্ত কর্মী। রাজনীতিতে তিনি একজন পরিক্ষীত মানুষ, নির্ভিক মানুষ, নির্লোভ মানুষ, অত্যন্ত সহজ সরলও নিরহংকারী একজন মানুষ। কথা প্রসংগে তিনি বলেন মানুষের যে ভালোবাসা আমার প্রতি রয়েছে সেটিকে আমি সম্মান করি এবং আমার জীবনের সবচেয়ে বড় সম্পদ বলে আমি মনে করি। বিগত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ঢাকা মহানগর উত্তর থেকে কাউন্সিলর পদে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মননয়ন দেন কিন্তু ষড়যন্ত্র করে আমাকে পরাজিত করা হলেও এলাকাবাসীর সমর্থন এবং ভালোবাসা আমার প্রতি অটুট রয়েছে বিধায় ভবিষ্যতের যেকোন নির্বাচনে আমি বিজয়ী হব ইনশাআল্লাহ। এলাকাবাসী জানেন আমি কথায় নয় কাজে বিশ্বাসী। সুখে দুঃখে মানুষের পাশে ছিলাম, আছি এবং থাকব। আলহাজ আজমত দেওয়ান আরও বলেন আওয়ামীলীগ সরকারের প্রধান বঙ্গবন্ধু কন্যা, জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশকে দারিদ্রমুক্ত করে মধ্যম আয়ের দেশ এ পরিণত করেছেন, এনালগ বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশে রূপান্তরিত করেছেন, পদ্মাসেতুর নির্মান কাজ চলছে, মেট্রো রেলের নির্মাণকাজ চলছে, অনেকগুলি ফ্লাইওভারের কাজ শেষ হয়েছে, অনেকগুলি চলমান রয়েছে। বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোলমডেল। ব্যাংকের রিজার্ভ এবং জি ডি পি অতীতের সকল রেকর্ড ছাড়িয়েছে। এ সব কিছু জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কে আন্তর্জাতিক মর্যাদা এনে দিয়েছে। দেশের উন্নয়নের জন্যই আওয়ামিলীগকে দরকার, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে দরকার। আওয়ামীলীগ জনগণের দল। জনগণের জন্যই আওয়ামীলীগের রাজনীতি । এই আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে আমিও নিজেকে সুখে দুঃখে জণগণের পাশে রাখতে চাই, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার একজন কর্মী হিসাবে থাকতে চাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here