ব্রেকফাস্টে শুধু ফল খান? বিপদ আছে

0
148

আজকাল অনেকেই সকালের নাশতা হিসেবে হরেক রকমের ফল খেয়ে থাকেন। ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার পন্থা হিসেবেই নাশতার টেবিলে ফল রাখা হয়। ফল থেকে প্রয়োজনীয় ভিটামিন, খনিজ উপাদান, ফাইবার এবং কার্বোহাইড্রেট পাওয়া যায়, যেগুলো খুবই স্বাস্থ্যসম্মত। এ কারণে অনেকে মনে করেন, অন্যান্য খাদ্যের বিকল্প হিসেবে ফল খাওয়া যেতে পারে। ব্রেকফাস্টে শুধু খাওয়া নিয়ে বিজ্ঞান কি বলছে? জেনে নেওয়া যাক।

রক্তে সুগারের মাত্রা কমে যায়: একটি আদর্শ ব্রেকফাস্টে কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, ফাইবার, ফ্যাট, ভিটামিন এবং খনিজ থাকা উচিত। রাতে খাওয়ার পর সকালের নাশতা খাওয়ার আগ পর‌্যন্ত প্রায় ৭/৮ ঘণ্টা পেট খালি থাকে। ওই সময়ের মধ্যে শরীর থেকে পুষ্টি, ক্যালোরি ক্ষয় হয়। তাই প্রতিদিন সকালে শুধুমাত্র হরেক রকমের ফল খেলে রক্তে সুগারের মাত্রা কমে যায়। কার্বোহাইড্রেট থেকে যে গ্লুকোজ পাওয়ার কথা সেটাতেও ঘাটতি দেখা দেবে।

 

ওজন বাড়ে: বর্তমানে অনেকেই বিশ্বাস করেন যে সকালের নাশতায় শুধু ফল খেলে ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে। কিন্তু ফলাফল উল্টো ঘটে। সকালে শুধু ফল খাওয়ার কারণে শরীরে পর‌্যাপ্ত পুষ্টি পাওয়া যায় না। ফলে ক্ষুধা বেড়ে যায়। এর ফলে দুপুরে এবং রাতে সাধারণত বেশি খাওয়া হয়ে থাকে।

 

ত্বক নির্জীব হয়ে পড়ে: সাধারণত ফল খেলে ত্বক প্রাকৃতিকভাবে উজ্জ্বল হয়। কিন্তু খাবারের বিকল্প হিসেবে ফল খেলে এর কার‌্যকারিতা থাকে না। তাই পুষ্টিসমৃদ্ধ খাবার দিয়ে ব্রেকফাস্ট সেরে নেওয়াই ভালো। পাশাপাশি রাখতে পারেন বিভিন্ন রকমের ফল।

 

সবসময় ক্ষুধা লাগা: সকালের নাশতা যদি অসম্পূর্ণ হয়, তাহলে সারাদিন পেটে ক্ষুধা লেগে থাকবে।  ক্ষুধা লাগা খারাপ নয় তবে অসময়ে ক্ষুধা লাগা বিরক্তিকর ব্যাপার হতে পারে।

 

এনার্জি না পাওয়া: সকালে পুষ্টিকর খাবার দিয়ে ব্রেকফাস্ট সারলে সারাদিন এনার্জি পাওয়া যায়। যদি শুধু ফল খেয়ে দিন শুরু করেন বিপাকে ধীরগতি দেখা দেবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here