নীলক্ষেত থেকে নিউমার্কেট জায়গাটাতে যে বিষয়ে খুব সতর্ক থাকা জরুরি

0
94

 

নীলক্ষেত থেকে নিউমার্কেট জায়গাটা খুব জরুরী আমাদের সবার কাছে। বই কেনার জন্য হোক বা মেয়েদের কেনাকাটার জন্য হোক। ছেলে, মেয়ে, ছোট, বড়, বুড়ো সব বয়সীদের যাতায়াত এখানে।

হেটে যাচ্ছেন, হঠাৎ দেখলেন কোন একজনের এক বান্ডিল টাকা আপনার পায়ের নীচে। যার টাকা সে তুলে নিয়ে আপনাকে বারবার ইংরেজিতে Thank you বলবে। বলবে আরে আপা /ভাইয়া আপনার জন্য আমার এতগুলো টাকা পাইলাম, অন্য কারো পায়ের নীচে পরলে হয়তো পেতাম না। এ পর্যন্ত স্বাভাবিক লাগছে তাই তো???

কিন্তু এখানেই শেষ না, আরো আছে,,,

আজ ২৪.০২.২০১৯, রবিবার বিকেলে নীলক্ষেত গিয়েছিলাম পুরো ঘটনাটা আমার সাথে ঘটেছে। লোকটা যখন বারবার ধন্যবাদ দিয়ে আমার পিছন পিছন হাটছিলো আর তার টাকার হিসাবটা আমাকে বোঝানোর চেষ্টা করছিলো তখন আমার সন্দেহ হয়েছিলো। আব্বুর কাছ থেকে পাওয়া সতর্কবাণী মনে করে লোকটার কোন কথার উত্তর না দিয়ে নিজের গন্তব্যে যাই।

রুমে আসার পর রুমমেট খুব আগ্রহ নিয়ে বলতে শুরু করেছে, আপু জানেন, আজ না আমার পায়ের নীচে একজনের টাকা পরছিলো, আমি নেই নি বলে,,,,,,, ,,,
আরো কিছু বলতে যাচ্ছিলো।
আমি বললাম, টাকা কি ২৫, ০০০ হাজার ছিলো?

রুমমেট : হ্যা আপু।
আমি :লম্বা ছিলো লোকটা ?
রুমমেট :হ্যা বলেই ভয়ে চুপ। তারপর ও যা বলল তার সারমর্ম হলো, লোকটা ইচ্ছা করেই বারবার ধন্যবাদ দিচ্ছিলো। ও যেখানে যাচ্ছিলো সব জায়গায় ওর সাথে যাচ্ছিলো এবং ওকে তার সাথে যেতে বলছিলো। আরো বলেছিলো ওর সব কেনাকাটা সে করে দিবে।
আরো একজন পাশের রুমের ছোটবোন এর সাথেও একই ঘটনা ঘটেছে, বলেছে এত বড় উপকার করলে কিছু তো নাও। কিছু না হয় বড় ভাই হিসেবেই কিনে দেই। আমার দোকান আছে ইসলামপুর, চলো আমার সাথে কিছু কিনে দিব।

সতর্কতা :
এসব লোকদের ব্যাপারে সবাই সতর্ক থাকবেন। এরা খুব সহজেই মানুষকে হিপনোটাইজ ও অজ্ঞান করতে সক্ষম। যখনই আপনি অজ্ঞান হয়ে যাবেন বা অসুস্থতা বোধ করবেন তখনই সে আপনাকে নিজের পরিচিত/ আত্মীয় বলে নিজের সাথে নিয়ে যাবে এবং সাথে থাকা মূল্যবান জিনিস হাতিয়ে নিবে। অন্যরাও কিছু বলবে না কারন, সবাই একটু আগেই আপনাকে তার সাথে কথা বলতে দেখবে। আর এরা সবসময়ই একা থাকা মানুষের সাথেই এরকম করে।

তাই সাবধান, সচেতন হোন, অন্যকেও সচেতন করুন।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here