ঝাল খাবারে কমে ক্যান্সারের ঝুঁকি!

0
113

নিজে তো ঝাল খেতেই পারেন না, আবার অন্যকে ঝাল খেতে দেখলে আপনার চোখ বড় হয়ে যায়! চোখ বড় করে লাভ নেই, যে আপনার থেকে বেশি ঝাল খেতে পারেন, তিনি আপনার থেকে বেশি ভাগ্যবান। কারণ, ঝাল খাবার থেকে শারীরিক সুবিধা পাওয়া যায়। দূরে থাকে অনেক রোগও। তাই অভ্যাস না থাকলেও এখন থেকেই শুরু করে দিন ঝাল খাওয়ার অভ্যাস। গবেষকরা বলছেন, দৈনিক মসলাদার খাবার, বিশেষ করে তাজা বা শুকনা মরিচ ক্যান্সার, হৃদযন্ত্রের অসুস্থতা, ফুঁসফুসের অসুখ কিংবা ডায়াবেটিসের মতো রোগ থেকে মানুষের মৃত্যুঝুঁকি কমায়।

চীনের এক গবেষণায় দেখা গেছে, যারা প্রায় প্রতিদিন মসলাদার খাবার খান, তাদের মৃত্যুঝুঁকি যারা সপ্তাহে একবারেরও কম মসলাদার খাবার খান, তাদের চেয়ে ১৪ শতাংশ কম। নারী এবং পুরুষ উভয়ের ক্ষেত্রেই গবেষণায় একই ফল পাওয়া গেছে এবং যারা অ্যালকোহল পান করেনি তাদের ক্ষেত্রে আরও বেশি ইতিবাচক ফল এসেছে। গবেষকরা বলছেন, ঘন ঘন মসলাযুক্ত খাবার খেলে ক্যান্সার, হৃদরোগ এবং শ্বাসযন্ত্রের রোগে মৃত্যুর ঝুঁকি কমে। চীনা একাডেমি অব মেডিকেল সায়েন্সের নেতৃত্বে আন্তর্জাতিক একটি গবেষকদল ৩০ থেকে ৭৯ বছর বয়সী ৪ লাখ ৮৭ হাজার ৩৭৫ জনের ওপর গবেষণাটি চালায়। প্রতিদিন মসলাদার খাবার খাওয়ার সঙ্গে মানুষের মৃত্যুর কারণ ও ঝুঁকির বিষয়টি খতিয়ে দেখেন তারা। যারা বেশি করে ঝাল খান, তাদের ক্ষেত্রে এটি বেশ স্পষ্ট বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। তারা বলেন, মরিচের উপাদান এক্ষেত্রে সহায়ক হয়। কারণ, মরিচের প্রধান উপাদান ‘ক্যাপসাইসিনের’ মধ্যে প্রচুর ভিটামিন সি ও অন্যান্য পুষ্টিগুণ আছে, যা অনেক রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। তাই যারা বেশি পরিমাণে ঝাল খান, তারা অনেক রোগের হাত থেকে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে পারবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here